বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * ‘গ্লোবাল অ্যাম্বাসেডর ফর ডায়াবেটিস’ পুরস্কার পেলেন প্রধানমন্ত্রী   * ঢাকায় ব্রিটিশ নাগরিকদের চলাচলে সতর্কতা জারি   * ৬৫ বছরের বেশি বয়সীরাও হজে যেতে পারবেন: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী   * ছাত্রলীগকে গুজবের জবাব দেওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর   * বাংলাদেশ ৩০০ কোটির বেশি মানুষের বাজার হতে পারে: প্রধানমন্ত্রী   * গাইবান্ধা-৫ আসনে উপনির্বাচনে ফের ভোট ৪ জানুয়ারি   * বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধ করলো ইন্দোনেশিয়া   * সাগরে সুস্পষ্ট লঘুচাপ, ১২ ডিগ্রির নিচে নামলো তাপমাত্রা   * ছাত্রলীগের সম্মেলন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী   * কুমিল্লায় ট্রেনের ধাক্কায় অটোরিকশার ৩ যাত্রী নিহত  

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
শুধু ভারত নয়, পাকিস্তানের কাছেও কম দামে তেল বিক্রি করবে রাশিয়া

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকেই ভারতের কাছে কম দামে তেল বিক্রি করে আসছিল রাশিয়া। এবার পাকিস্তানের কাছেও কম দামে তেল বিক্রি করতে রাজি হয়েছে পুতিন প্রশাসন। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায় বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

জানা যায়, রাশিয়ার ওপর থাকা পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞাকে পাশ কাটিয়েই তেল বাণিজ্য চালিয় আসছিল ভারত। এ দেখে পাকিস্তানও সুলভ দামে রাশিয়ার কাছ থেকে তেল কিনতে আগ্রহ প্রকাশ করে। এ নিয়ে পুতিন প্রশাসনে সঙ্গে কথা বলতে রাশিয়া সফর করে পাকিস্তানের প্রতিনিধিদল। তারপরই শোনা যায়, পাকিস্তানের কাছে কম দামে তেল বিক্রি করতে রাজি হয়েছে মস্কো।

সোমবার পাকিস্তানের পেট্রোলিয়াম প্রতিমন্ত্রী মুসাদ্দিক মালিক জানান, রাশিয়া পাকিস্তানের কাছে ছাড়কৃত দামে অপরিশোধিত তেল বিক্রি করবে। ২৮ নভেম্বর এ বিষয়ে চুক্তির জন্য তিনি একটি সরকারি প্রতিনিধি দল নিয়ে মস্কোতে গিয়েছিলেন। রুশ প্রেসিডেন্ট আমাদের আহ্বানে সাড়া দিয়েছেন।

মুসাদ্দিক মালিক আরও জানান, অপরিশোধিত তেল ছাড়াও পাকিস্তানের কাছে কম দামে পেট্রোল ও ডিজেল সরবরাহ করবে রাশিয়া। অবশ্য রাশিয়া কম দামে তেল বিক্রিতে রাজি হলেও ঠিক কতটা কমে বা ডিসকাউন্টে ইসলামাবাদের কাছে তেল দিবে তা নির্দিষ্ট করেননি মুসাদ্দিক মালিক।

তাছাড়া এ সপ্তাহেই সমুদ্র পথে রাশিয়ান তেলের ওপর পশ্চিমাদের বেঁধে দেওয়া ব্যারেল প্রতি ৬০ মার্কিন ডলারের দাম এখানে কার্যকর হবে কিনা, তাও স্পষ্ট করেরনি মুসাদ্দিক মালিক।

পাকিস্তানের প্রেট্রোলিয়াম প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, রুশ সরকার তরল প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) কেনার জন্য দীর্ঘমেয়াদী চুক্তির বিষয়ে আলোচনায় বসতে পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে। ইসলামাবাদ এরই মধ্যে এলএনজি আমদানির বিষয়ে রাশিয়ার বেসরকারি কোম্পানিগুলোর সঙ্গে কথা বলছে।

এদিকে, পশ্চিমাদের দাম নির্ধারণ করে দেওয়ার বিষয়ে মস্কো বলে, পশ্চিমাদের মূল্যবৃদ্ধি মেনে চলা দেশগুলোর কাছে রাশিয়া তেল বিক্রি করবে না। এছাড়া পাকিস্তানের কাছে কম দামে তেল বিক্রির বিষয়েও রুশ জ্বালানি মন্ত্রণালয় থেকে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

শুধু ভারত নয়, পাকিস্তানের কাছেও কম দামে তেল বিক্রি করবে রাশিয়া
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকেই ভারতের কাছে কম দামে তেল বিক্রি করে আসছিল রাশিয়া। এবার পাকিস্তানের কাছেও কম দামে তেল বিক্রি করতে রাজি হয়েছে পুতিন প্রশাসন। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায় বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

জানা যায়, রাশিয়ার ওপর থাকা পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞাকে পাশ কাটিয়েই তেল বাণিজ্য চালিয় আসছিল ভারত। এ দেখে পাকিস্তানও সুলভ দামে রাশিয়ার কাছ থেকে তেল কিনতে আগ্রহ প্রকাশ করে। এ নিয়ে পুতিন প্রশাসনে সঙ্গে কথা বলতে রাশিয়া সফর করে পাকিস্তানের প্রতিনিধিদল। তারপরই শোনা যায়, পাকিস্তানের কাছে কম দামে তেল বিক্রি করতে রাজি হয়েছে মস্কো।

সোমবার পাকিস্তানের পেট্রোলিয়াম প্রতিমন্ত্রী মুসাদ্দিক মালিক জানান, রাশিয়া পাকিস্তানের কাছে ছাড়কৃত দামে অপরিশোধিত তেল বিক্রি করবে। ২৮ নভেম্বর এ বিষয়ে চুক্তির জন্য তিনি একটি সরকারি প্রতিনিধি দল নিয়ে মস্কোতে গিয়েছিলেন। রুশ প্রেসিডেন্ট আমাদের আহ্বানে সাড়া দিয়েছেন।

মুসাদ্দিক মালিক আরও জানান, অপরিশোধিত তেল ছাড়াও পাকিস্তানের কাছে কম দামে পেট্রোল ও ডিজেল সরবরাহ করবে রাশিয়া। অবশ্য রাশিয়া কম দামে তেল বিক্রিতে রাজি হলেও ঠিক কতটা কমে বা ডিসকাউন্টে ইসলামাবাদের কাছে তেল দিবে তা নির্দিষ্ট করেননি মুসাদ্দিক মালিক।

তাছাড়া এ সপ্তাহেই সমুদ্র পথে রাশিয়ান তেলের ওপর পশ্চিমাদের বেঁধে দেওয়া ব্যারেল প্রতি ৬০ মার্কিন ডলারের দাম এখানে কার্যকর হবে কিনা, তাও স্পষ্ট করেরনি মুসাদ্দিক মালিক।

পাকিস্তানের প্রেট্রোলিয়াম প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, রুশ সরকার তরল প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) কেনার জন্য দীর্ঘমেয়াদী চুক্তির বিষয়ে আলোচনায় বসতে পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে। ইসলামাবাদ এরই মধ্যে এলএনজি আমদানির বিষয়ে রাশিয়ার বেসরকারি কোম্পানিগুলোর সঙ্গে কথা বলছে।

এদিকে, পশ্চিমাদের দাম নির্ধারণ করে দেওয়ার বিষয়ে মস্কো বলে, পশ্চিমাদের মূল্যবৃদ্ধি মেনে চলা দেশগুলোর কাছে রাশিয়া তেল বিক্রি করবে না। এছাড়া পাকিস্তানের কাছে কম দামে তেল বিক্রির বিষয়েও রুশ জ্বালানি মন্ত্রণালয় থেকে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

কলকাতায় এক মাসে তিনবার বাড়লো ডিমের দাম
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ধৃমল দত্ত, কলকাতা: বাজারে শীতের সবজি আসতে শুরু করেছে। নতুন আলুর দামও কিছুটা কমেছে। তবে আবার বেড়েছে ডিমের দাম। এ নিয়ে কলকাতায় কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানে তিনবার বাড়লো ডিমের দাম।

কলকাতায় ডিমের দাম ৫০ পয়সা বেড়ে এখন প্রতি পিস বিক্রি হচ্ছে সাত রুপিতে। ফলে মাত্র এক মাসের ব্যবধানে সেখানে ডিমের দাম বেড়েছে ১ রুপি ৫০ পয়সা।

বারবার দাম বাড়ার কারণ হিসেবে কলকাতার ডিম ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, মুরগির খাবারের দাম বেড়ে যাওয়ায় ডিমের দাম বেড়েছে। তবে খাবারের দাম যেভাবে বেড়েই চলেছে, তাতে আগামীতে ডিমের দাম আরও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

শুধু কলকাতা নয়, পশ্চিমবঙ্গের অন্য জেলাগুলোতেও বেড়েছে ডিমের দাম। মাসখানেক আগেও কলকাতা ও শহরতলী বাজারগুলোতে ডিমের দাম ছিল প্রতি পিস পাঁচ রুপি। এখন তা বিক্রি হচ্ছে অন্তত সাত রুপিতে।

ওয়েস্ট বেঙ্গল পোল্ট্রি ফেডারেশনের জানিয়েছে, পোল্ট্রি খাবারের দাম হু হু করে বাড়ছে। তার সঙ্গে খরচ বেড়েছে পরিবহনেরও। এর ফলে কলকাতা ও আশপাশের শহরগুলোতে ডিমের দাম বাড়ানো ছাড়া আর কোনো উপায় ছিল না।

শিয়ালদহ ডিম পট্টি পাইকারি বাজারে এক পেটি ডিম বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৪৭০ রুপিতে। প্রতি পেটিতে ডিম থাকে ২১০টি। ফলে পাইকারি দাম সাত রুপি হওয়ায় খুচরা বাজারে প্রতি পিস ডিম বিক্রি হচ্ছে আট রুপিতে।

ডিমের দাম এভাবে বাড়তে থাকায় বিপাকে পড়েছেন মধ্যবিত্তরা। কলকাতার পার্শ্ববর্তী শহরাঞ্চল পানিহাটির গৃহবধূ স্বপ্ন দেবনাথ বলেন, সকালের নাশতা থেকে শুরু করে রাতের খাবার, সব বেলাতেই ডিম দরকার হয়। কিন্তু এর দাম হু হু করে বাড়লে প্রতিদিনের খরচ বাজেট ছাড়িয়ে যাবে। তাই সকালের নাশতায় ডিম বাদ দিতে হচ্ছে।

পশ্চিমবঙ্গে দৈনিক ডিমের চাহিদা প্রায় তিন কোটি। আর রাজ্যের উৎপাদন সক্ষমতা ৮০ থেকে ৯০ লাখ। আম্ফান ঝড়ের পর সেই সক্ষমতা আরও কমেছে। তাই ডিমের চাহিদা মেটাতে পশ্চিমবঙ্গকে নির্ভর করতে হচ্ছে অন্ধপ্রদেশ-তেলেঙ্গানার মতো রাজ্যগুলোর ওপর। তবে পরিবহন খরচ ও ডিজেলের দাম বৃদ্ধি ডিমের দামে প্রভাব ফেলেছে বলে মনে করছেন ব্যবসায়ীরা।

প্রসাধনী সামগ্রী বিক্রি করে বিলিয়নিয়ারের তালিকায় চীনা নারী
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সৌন্দর্য বাড়ানোর চর্চা মানুষের ইচ্ছা-আকাঙ্খার বহিঃপ্রকাশও বটে। দিন দিন সেই প্রবণতা বেড়েছে বহুগুণে। ফলে দেশে দেশে জমজমাট প্রসাধনী সমাগ্রী বিক্রির বাজার। শুধু তাই নয় এই ব্যবসায় অর্থলগ্নি করে অঢেল সম্পদের মালিকও হচ্ছেন কেউ কেউ। এমনি একজন চীনা নারী উদ্যোক্তা ফ্যান দাইদি।

জায়ান্ট বায়োজিন হোল্ডিং কোম্পানির সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ফ্যান দাইদি বিলিয়নিয়ার ক্লাবে যোগ দেওয়া সর্বশেষ উদ্যোক্তা। সম্প্রতি কয়েক বছরের মধ্যে এই সেক্টরে তৃতীয় অবস্থান দখলে নিলেন তিনি।

গত ৪ নভেম্বর হংকং স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত হয় চীনের স্কিনকেয়ার পণ্য সরবরাহকারী জায়ান্ট বায়োজিন হোল্ডিং কোম্পানি। ব্লুমবার্গ বিলিয়নিয়ার সূচক অনুসারে, গত মাসে হংকং-এ ফেসিয়াল ক্রিম ও মাস্ক প্রস্তুতকারক হিসেবে প্রকাশ্যে আসার পর তার মোট সম্পদের মূল্য ২ দশমিক ৬ বিলিয়ন বা ২৬০ কোটি মার্কিন ডলারের বেশি।

৫৬ বছর বয়সী ফ্যান দাইদি, জিয়ানের নর্থওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির বায়োমেডিক্যাল রিসার্চ ইনস্টিটিউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এবং ডিন। ১৭৫ মিলিয়ন ডলার মূল্যের বিমানের যন্ত্রাংশ সরবরাহকারী জিয়ান ট্রায়াঙ্গেল ডিফেন্সে তার স্বল্প পরিমাণে অংশীদারিত্ব রয়েছে।

ফ্যান দাইদি কর্মজীবনের শুরুতে, ১৯৯৯ সালের জানুয়ারি থেকে ২০০০ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির ন্যাশনাল সেন্টার ফর বায়োলজিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের একজন জ্যেষ্ঠ পরিদর্শক ছিলেন।

কোম্পানির প্রসপেক্টাস অনুসারে, এ বছরের মে মাস থেকে গত পাঁচ মাসে, জিয়ান-হেডকোয়ার্টার জায়ান্টের আয় এক বছর আগের ৫২০ দশমিক ৬ মিলিয়ন ইউয়ান থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭২৩ মিলিয়ন ইউয়ান। এ বছর গত পাঁচ মাসের নিট মুনাফা ছিল ৩১৩ দশমিক ৬ মিলিয়ন ইউয়ান।

চীনে অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও মহামারির কারণে এ মাসের শুরুতে ধনীদের তালিকায় শীর্ষ একশ জনে থাকা ব্যক্তিদের সম্পদের মূল্য কমেছে। গত নভেম্বরে প্রকাশিত নতুন তালিকায় চীনের একশ ধনীর সম্মিলিত সম্পদ গত বছরে তালিকাভুক্ত হওয়া ১ দশমিক ৪৮ ট্রিলিয়ন থেকে ৩৯ শতাংশ কমে ৯০৭ দশমিক ১ বিলিয়ন ডলার হয়েছে।

যদিও যুক্তরাষ্ট্রের পর, বিশ্বের দ্বিতীয় হিসেবে চীনে সবচেয়ে বেশি বিলিয়নিয়ারের বসবাস।

সূত্র: ব্লমবার্গ, ফোর্বস

বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধ করলো ইন্দোনেশিয়া
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্ক নিয়ে ইন্দোনেশিয়ার সংসদে নতুন একটি আইন পাস হয়েছে। এখন থেকে বিশ্বের বৃহত্তম এ মুসলিম দেশে বিয়ের আগে দৈহিক সম্পর্কের শাস্তি হিসেবে দেওয়া হবে সর্বোচ্চ এক বছরের কারাদণ্ড। মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানায় মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

জানা যায়, এ আইনের উল্লেখযোগ্য সংশোধনগুলো হলো- বিবাহবহির্ভূত শারীরিক সম্পর্কের জন্য এক বছর পর্যন্ত জেল, প্রেসিডেন্টকে অপমান করা ও প্যানকাসিলা নামে পরিচিত জাতীয় আদর্শের বিপরীত মতামত প্রকাশের জন্য শাস্তি প্রণয়ন।

আইনটি তৈরির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আইনপ্রণেতা বামবাং উরুয়ান্তো জানান, নতুন এ আইন ইন্দোনেশিয়ার নাগরিক ছাড়াও ইন্দোনেশিয়ায় যাওয়া বিদেশিদের জন্যও প্রযোজ্য হবে।

‘তবে স্বপ্রণোদিত হয়ে বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হওয়া কেউ এ আইনের আওতায় পড়বেন না। কেবল অভিযুক্তদের নিকটাত্মীয়রা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে অভিযোগ দিলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

কারও স্বামী-স্ত্রী যদি অন্য কোনো নারী-পুরুষের সঙ্গে যৌন সম্পর্কে জড়ান, তাহলে ভুক্তভোগী ব্যক্তিও পুলিশের কাছে অভিযোগ দিতে পারবেন। অন্যদিকে, অবিবাহিতদের ক্ষেত্রে প্রধান সাক্ষী হিসেবে অভিযোগ দিতে পারবেন তাদের মা-বাবা।

ইন্দোনেশিয়ায় বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক নিয়ে তৈরি এ আইন সংসদে প্রথম উত্থাপন করা হয় ২০১৯ সালে। সে বছর অনেকেই এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে বিক্ষোভ করেছিলেন। বিশেষ করে, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে দেশটির রাজধানী জাকার্তা একপ্রকার অচল হয়ে গিয়েছিল।

জানা যায়, সেসময়ের খসড়া ওই আইনে শুধু বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের কথা উল্লেখ ছিল না। জাতীয় পতাকা ও প্রেসিডেন্টকে অবমানার শাস্তির পাশাপাশি গর্ভপাতের জন্য চার বছরের কারাদণ্ডের বিধানও রাখা হয়েছিল, যদিও এখন তা পাঁচ বছরের করা হয়েছে।

অবশ্য দেশটির আচেহ প্রদেশে আগে থেকেই এসব বিধান ছিল। সেখানে নারী-পুরুষের মেলামেশা, যৌন সম্পর্ক ও মদ্যপান জনসম্মুখে করলে বেত্রাঘাত করা হয়।

বার্তাসংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে বলে, দেশটির অনেকে আইনটিকে ইতিবাচক হিসেবে নিলেও, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলো এটি নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছে। তাদের মতে, এধরনের আইন পাস হলে সারাবিশ্ব ইন্দোনেশিয়াকে অন্য চোখে দেখবে। যা পর্যটনখাতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

কয়েক দশক ধরে আইনটির খসড়া প্রস্তুত করা হয়েছে জানিয়ে ইন্দোনেশিয়ার উপ-আইনমন্ত্রী অ্যাডওয়ার্ড ওমর শরিফ হিয়ারিয়েজ গণমাধ্যমকে বলেন, ১৫ ডিসেম্বর নতুন এ ফৌজদারি দণ্ডবিধি পাস হতে পারে। ইন্দোনেশিয়ান মূল্যবোধের সঙ্গে সংগতি রেখে আইনটি প্রণয়ন করতে পেরে আমরা গর্বিত। আশা করি, এর মাধ্যমে গুরুতর কিছু অপরাধ দমন করা যাবে।

এরই মধ্যে ইন্দোনেশিয়ার কয়েকটি ইসলামি সংগঠন খসড়া আইনটির প্রতি সমর্থন জানিয়েছে। তবে বিরোধীরা বলছেন, আইনটি ১৯৯৮ সালে ইন্দোনেশিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট সুহার্তোর পতনের পর কার্যকর হওয়া উদার সংস্কারগুলোর পরিপন্থি।

বিশ্বে করোনায় একদিনে ৮১০ মৃত্যু, শনাক্ত ২ লাখ
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ২ লাখ ৩ হাজার ৭২৪ জন। এসময়ে সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ৯৭ হাজার ৮৯৩ জন।

এ নিয়ে মহামারির শুরু থেকে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৬ লাখ ৪৭ হাজার ৬৬৭ জনে। এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৫ কোটি ২ লাখ ৪১ হাজার ৪৯১ জনে। করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ৬২ কোটি ৭২ লাখ ৫৯ হাজার ৪৩৮ জন।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) সকালে বৈশ্বিক পর্যায়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার আপডেট দেওয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, বিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ও শনাক্ত হয়েছে জাপানে। আক্রান্তের দিক থেকে তালিকার ৭ নম্বর থাকা দেশটিতে এসময়ে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৭ হাজার ৬২১ জন ও মারা গেছেন ১১৭ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৫০ হাজার ৪৬১ জন। আর শনাক্ত হয়েছেন ২ কোটি ৫২ লাখ ৬৮ হাজার ৭৩ জন।

দৈনিক মৃত্যুতে জাপানের পরই ফান্সের অবস্থান। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত হন ১০ হাজার ৫৯১ জন এবং মারা গেছেন ১০৪ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩ কোটি ৮০ লাখ ৭৮ হাজার ৫৬৫ জন, মারা গেছেন ১ লাখ ৫৯ হাজার ২৪৫ জন।

দৈনিক সংক্রমণে জাপানের পরই অবস্থান ব্রাজিলের। দেশটিতে ২৪ ঘণ্টায় ২৭ হাজার ১৭৯ জন সংক্রমিত ও ৬৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ কোটি ৫৪ লাখ ৩৬ হাজার ৩১ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ৯০ হাজার ২৯৮ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ কোটি ৪২ লাখ ৬২ হাজার ১০৪ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে ৬৮ জনের মৃত্যু ও ১৮ হাজার ৫২৮ জন সংক্রমিত হয়েছেন। করোনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশটিতে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ১১ লাখ ৬ হাজার ৯৯০ জন। এর মধ্যে ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৬৮ জন। এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১০ কোটি ৯ লাখ ৬ হাজার ১১১ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৯ কোটি ৮৩ লাখ ২০ হাজার ৫৫৪ জন।

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এ পর্যন্ত ৫ লাখ ৩০ হাজার ৬৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ৪ কোটি ৪৬ লাখ ৭৪ হাজার ৮৭৪ জন। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪ কোটি ৪১ লাখ ৩৭ হাজার ৬১৭ জন। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে শনাক্ত হয়েছে ২০৭ জন। তবে এসময়ে কোনো মৃত্যুর তথ্য পাওয়া যায়নি।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহান প্রদেশের হুবেই শহরে প্রথম করোনার অস্তিত্ব শনাক্ত হয়। কয়েক মাসের মধ্যেই ভাইরাসটি বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। পরের বছরের ১১ মার্চ করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

ইউক্রেনে আবারও রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলা, নিহত ২
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইউক্রেনের বিভিন্ন শহরে নতুন করে ব্যাপক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে রাশিয়া। দেশটির দক্ষিণপূর্বাঞ্চলে রাশিয়ার এ হামলায় অন্তত দুজন নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন অনেকে। ধ্বংস হয়েছে বহু বাড়িঘর, দেখা দিয়েছে বিদ্যুৎ বিপর্যয়। সোমবার ইউক্রেনের স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এসব তথ্য জানায়।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে মস্কোর আগ্রাসন শুরুর পর রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলার এটি নতুন ঢেউ বলে মন্তব্য করেছেন ইউক্রেনীয় কর্মকর্তারা। এদিকে, এ হামলাকে ইউক্রেনে নতুন করে রাশিয়ার ব্যাপক বিমান হামলার পূর্বাভাস হিসেবে দেখছেন অনেকে।

গত কয়েক সপ্তাহে ইউক্রেনের জ্বালানি অবকাঠামোগুলোতে রাশিয়ার ব্যাপক বিমান হামলার পর নতুন করে এ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হলো।

এর আগে, কিয়েভ কর্তৃপক্ষ বাসিন্দাদের জানিয়েছিল, রুশ হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত বিদ্যুৎস্থাপনাগুলো মেরামতের পরই জরুরি লোডশেডিং বন্ধ হবে। তার মধ্যেই আবারও দেশটির অবশিষ্ট বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী অবকাঠামো লক্ষ্য করে হামলা চালালো ক্রেমলিন।

লন্ডনভিত্তিক ইন্টারনেট সংযোগ পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা নেটব্লকস বলেছে, রাশিয়ার হামলার কারণে ইউক্রেনের একাধিক অঞ্চলে ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

হামলা থেকে বাঁচতে অসংখ্য মানুষ ইউক্রেনের রাজধানীর বিশাল আন্ডারগ্রাউন্ড মেট্রোতে ভিড় করছেন। এ সময় নারী-পুরুষ, ও শিশুদের গরমের টুপি, মোটা কোট ও হুড পরে বিষণ্ণভাবে বসে থাকতে দেখা গেছে।

এদিকে, হামলার পরপরই ইউক্রেনজুড়ে রুশ বিমান হামলার সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এ বিষয়ে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির কার্যালয়ের কর্মীদের প্রধান আন্দ্রি ইয়ারমাক বলেন, কোনোভাবেই সতর্ক সংকেত উপেক্ষা করা যাবে না।

দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর মাইকোলাইভের মেয়র বলেছেন, অগ্নিকাণ্ডের আশঙ্কায় এ অঞ্চলের আশপাশের এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে।

যুদ্ধক্ষেত্রে বিপর্যয়ের মুখোমুখি হওয়ায় রুশ সৈন্যরা গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ইউক্রেনের জ্বালানি স্থাপনাকে লক্ষ্য করে হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। এতে শীত শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বড় ধরনের বিদ্যুৎ বিভ্রাটের মুখোমুখি হয়েছেন ইউক্রেনীয়রা। দেশটির গড় তাপমাত্রা এখন প্রায় মাইনাস ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে (২৩ ডিগ্রি ফারেনহাইট) নেমে এসেছে।

সূত্র: রয়টার্স

কলম্বিয়ায় ভূমিধসে চাপা পড়লো বাস, নিহত ২৭
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : কলম্বিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে ভূমিধসে একটি বাস চাপা পড়ে অন্তত ২৭ জন নিহত হয়েছেন। রোববার (৪ নভেম্বর) রিসারালদা প্রদেশে মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনা ঘটে। দেশটির প্রেসিডেন্ট গুস্তাভো পেত্রো এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষ বলছে, কলম্বিয়ার তৃতীয় বৃহত্তম শহর ক্যালি ও চোকো প্রদেশের কন্ডোটোর মধ্যে চলাচলকারী ওই বাসে কমপক্ষে ২৫ জন যাত্রী ছিলেন।

জানা যায়, ভারি বৃষ্টিপাতের কারণে কলম্বিয়ার রাজধানী বোগোটা থেকে প্রায় ২৩০ কিলোমিটার (১৪০ মাইল) দূরের রিসারালদা প্রদেশের পুয়েবলো রিকো ও সান্তা সিসিলিয়া গ্রামের মাঝামাঝি ভয়াবহ ভূমিধসে যাত্রীবাহী বাসটি চাপা পড়ে।

এ ঘটনার পর টুইটারে দেওয়া এক বিবৃতিতে কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাতে হচ্ছে, পুয়েবলো রিকো ট্র্যাজেডিতে এখন পর্যন্ত তিন শিশুসহ ২৭ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

‘নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও শোক প্রকাশ করছি। দেশটির সরকারের পক্ষ থেকে নিহতদের পরিবারকে সহায়তা করা হবে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।’

পুয়েবলো রিকোর মেয়র লিওনার্দো ফ্যাবিও সিয়াগামা বলেন, ভূমিধসে বাস চাপা পড়ে যারা মারা গেছেন, তাদের দেহ শহরের একটি স্টেডিয়ামে আনা হচ্ছে।

এর আগে, রিসারালদার গভর্নর ভিক্টর ম্যানুয়েল তামায়ো জানিয়েছিলেন, চাপা পড়া বাস থেকে পাঁচজনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

কলম্বিয়ায় বর্তমানে অস্বাভাবিক ভারি বর্ষা মৌসুম শুরু হয়েছে। সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী, চলতি বছরে ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট বিভিন্ন ধরনের দুর্ঘটনায় দেশটিতে ২১৬ জনের বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে।

এছাড়া বৃষ্টিপাতজনিত প্রাকৃতিক দুর্যোগে গৃহহীন হয়ে পড়েছেন কলম্বিয়ার আরও ৫ লাখ ৩৮ হাজার মানুষ। এছাড়া এ ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ৪৮ জন।

সূত্র: আল জাজিরা

রাশিয়ার দুটি বিমানঘাঁটিতে বিস্ফোরণ, নিহত ৩
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর দু’টি বিমানঘাঁটিতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে তিন সৈন্য নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত আটজন। সোমবার (৫ নভেম্বর) রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে জার্মান বার্তাসংস্থা ডয়েচে ভেলে ও ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি এসব তথ্য জানায়।

জানা যায়, মস্কোর দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের রিয়াজান শহরের কাছের একটি বিমানঘাঁটিতে জ্বালানি ট্যাংকার বিস্ফোরণে অন্তত তিনজন নিহত ও ছয়জন আহত হয়েছেন। তাছাড়া ইউক্রেনের প্রায় ৬০০ কিলোমিটার পূর্বে সারাতোভ অঞ্চলের এঙ্গেলস-২ বিমানঘাঁটিতে বড় ধরনের বিস্ফোরণের ঘটনায় আরও দু’জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

তবে এসব বিস্ফোরণের কারণ এখনও জানা যায়নি। তাছাড়া, দুটি বিস্ফোরণস্থলের অবস্থানই ইউক্রেনের সীমান্ত এলাকা থেকে কয়েকশ কিলোমিটার দূরে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে সারাতোভ শহরের বাসিন্দাদের পোস্ট দেখে বিস্ফোরণের কথা প্রথম জানা যায়। ধারণা করা হচ্ছে, সোমবার স্থানীয় সময় ভোর ৬টায় এঙ্গেলস-২ বিমান ঘাঁটিতে বড় বিস্ফোরণ ঘটে।

সারাতোভের আঞ্চলিক গভর্নর রোমান বুসারগিন বলেন, আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী এ ঘটনা তদন্ত করে দেখছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের শান্ত থাকতে বলা হয়েছে। তবে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি সরাসরি ‘বিস্ফোরণ’ শব্দটি উল্লেখ করেননি।

এদিকে, বিবিসির রুশ সম্পাদক স্টিভেন রোসেনবার্গ বলেন, নিজেদের পৃথক দু’টি সামরিক স্থাপনায় বিস্ফোরণের পেছনে ইউক্রেনের জড়িত থাকতে পারে বলে দাবি করতে পারে ক্রেমলিন।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, আমাদের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে পৃথক বিস্ফোরণের বিষয়টি জানানো হয়েছে। তবে, এ ঘটনার পেছনে কারা জড়িত বা কীভাবে এ বিস্ফোরণ ঘটলো, তা নিয়ে আমার কাছে এখনো কোনো পরিষ্কার তথ্য নেই। তবে আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী বিষয়টি খুব গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমগুলোর দাবি, এঙ্গেলস বিমানঘাঁটিতে রাশিয়ার কৌশলগত দূরপাল্লার বোমারু বিমানগুলো রাখা আছে। গত সপ্তাহে স্যাটেলাইট থেকে সংগ্রহ করা কয়েকটি ছবিতে এ বিমানঘাঁটিতে সামরিক বিমানের তৎপরতা দেখা যায়। সেসব ছবি প্রকাশে পর বিস্ফোরণের এ ঘটনা ঘটলো।

সূত্র: বিবিসি, ডয়েচে ভেলে

উত্তর কোরিয়া শতাধিক কামানের গোলা ছুড়েছে: দক্ষিণ কোরিয়া
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সামরিক মহড়া থেকে নিজেদের পূর্ব ও পশ্চিম উপকূলীয় সমুদ্র এলাকায় প্রায় ১৩০টি কামানের গোলা নিক্ষেপ করেছে উত্তর কোরিয়া। যৌথ সীমান্তের কাছে সর্বশেষ সামরিক মহড়া থেকে এসব গোলা ছুড়েছে পিয়ংইয়ং। সোমবার (৫ নভেম্বর) দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনী এ তথ্য জানায়।

দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনীর দাবি, কিম জং উনের ছোড়া কিছু গোলা সমুদ্র সীমানার কাছের বাফার জোনে এসে পড়ে। তাছাড়া এ মহড়াকে ২০১৮ সালে সীমান্তে উত্তেজনা সৃষ্টিকারী যেকোনো ধরনের কার্যকলাপ নিষিদ্ধ করে সই হওয়া আন্তঃকোরীয় সামরিক চুক্তির লঙ্ঘন বলে দবি করছে সিউল।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, এ গোলাবর্ষণের ঘটনায় আমাদের সামরিক বাহিনী উত্তর কোরিয়াকে সতর্কবার্তা পাঠিয়েছে। পরবর্তীতে এ ধরনের ঘটনা ঘটলে চুপ থাকবে ইওন সুক ইওল প্রশাসন।

এদিকে, কামানের গোলা নিক্ষেপের বিষয়ে তাৎক্ষণকি কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি পিয়ংইয়ং। তবে ওয়াশিংটন ও সিউলের যৌথ সামরিক বিমান মহড়াকে কেন্দ্র করে অক্টোবর ও নভেম্বর মাসজুড়ে যুদ্ধবিমান উড়ানো, ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ ও মহড়াসহ ধারাবাহিক সামরিক কার্যক্রম চালিয়ে আসছে উত্তর কোরিয়া।

অন্যদিকে, কিম জং উনের এমন আগ্রাসী মনোভাবের প্রতিক্রিয়ায় দক্ষিণ কোরিয়া-যুক্তরাষ্ট্রও এ বছর কোরীয় উপদ্বীপে সামরিক মহড়া বৃদ্ধি করেছে। মিত্র দেশ দুটি বলছে, পারমাণবিক অস্ত্রে সজ্জিত উত্তর কোরিয়াকে ঠেকাতে নিয়মিত যৌথ মহড়া চালানো দরকার।

২০১৮ সালে উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন ও দক্ষিণ কোরিয়ার তৎকালীন প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইনের মধ্যে কয়েক দফা বৈঠক হয়। ওই বৈঠকের পর দুদেশের মধ্যে বেশ কয়েকটি সামরিক চুক্তি সই হয়।

এ চুক্তির পর উত্তর কোরিয়া কিছুটা শান্ত হলেও, দুই কোরিয়ার সম্পর্কের অচলাবস্থা অবসানের উদ্যোগ থেমে গেছে। তাছাড়া, উত্তর কোরিয়ার সাম্প্রতিক মহড়া ও বাফার জোনে শক্তি প্রদর্শন ২০১৮ সালে হওয়া চুক্তিগুলোর ভবিষ্যতকে প্রশ্নের মুখে ঠেলে দিয়েছে।

পিয়ংইয়ংয়ের ক্রমবর্ধমান ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের ফলে ২০১৭ সালের পর দেশটি আবারও পারমাণবিক অস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে গুঞ্জন ছড়িয়েছে।

গত ২ নভেম্বর দক্ষিণ কোরিয়ার দক্ষিণ-পূর্ব উপকূলীয় শহর উলসানের জলসীমায় দুটি পারমাণবিক শক্তিসম্পন্ন ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে উত্তর কোরিয়া। যদিও সিউল সে সময় দাবি করেছিল, এ তথ্য পুরোপুরি মিথ্যা। উলসান কিংবা আশেপাশের এলাকায় কোনো ক্ষেপণাস্ত্র শনাক্ত হয়নি।

উত্তর কোরিয়া সেদিন প্রায় ২৩টি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছিল, যার মধ্যে একটি ক্ষেপণাস্ত্র উত্তর সীমারেখার ২৬ কিলোমিটার দক্ষিণে গিয়ে পড়ে। ওই জায়গাটি দুই কোরিয়ার মধ্যে একটি অনানুষ্ঠানিক সামুদ্রিক সীমানা হিসাবে কাজ করে। ১৯৫৩ সালে কোরিয়ান যুদ্ধ শেষ হওয়ার পর প্রথমবারের মতো ওই স্থানে কোনো ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে।

গত দুই মাসে উত্তর কোরিয়া ৫০টিরও বেশি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে, সেগুলোর বেশিরভাগ স্বল্পপাল্লার হলেও, আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের মতো দূরপাল্লার ক্ষেপনাস্ত্র রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষাকে নিজেদের জন্য সরাসরি হুমকি বলে মনে করছে। কারণ ক্ষেপণাস্ত্রগুলো যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডের যেকোনো স্থানে হামলা চালানোর সক্ষমতা রাখে।

সূত্র: রয়টার্স

সিরিয়ায় অভিযান চালাতে অনুমতির প্রয়োজন নেই: তুরস্ক
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সিরিয়ায় ‘সন্ত্রাস’ দমনে অভিযান চালাতে তুরস্কের কারও অনুমতির প্রয়োজন নেই বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন। রোববার (৪ ডিসেম্বর) এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ইব্রাহিম কালিন বলেন, ‘আমাদের অনুমতি নেওয়ার জন্য কাউকে জিজ্ঞেস করার প্রয়োজন নেই। আমরা শুধু দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিতে মিত্রদের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘সিরিয়ার রাজনৈতিক অস্থিরতা অবশ্যই কারও জন্য ভালো নয়। এটি প্রত্যেকের জন্য হুমকিস্বরুপ। শুধু আমাদের জন্য নয়, ইরাক, জর্ডান এবং অন্যান্য দেশ, এমনকি ইউরোপের জন্যও হুমকি।’

গত মাসে সিরিয়া ও ইরাকের উত্তরাঞ্চলে কুর্দি সশস্ত্র গোষ্ঠী কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টি (পিকেকে), কুর্দিশ পিপলস প্রোটেকশন ইউনিটের (ওয়াইপিজি) স্থাপনা লক্ষ্য করে অভিযান চালায় তুরস্ক।

সম্প্রতি ইস্তাম্বুলের জনপ্রিয় ইস্তিকলাল অ্যাভিনিউতে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী বোমা হামলা চালালে ৬ জন নিহত ও ৮১ জন আহত হন। এ ঘটনার আটদিন পরই ওই অভিযান চালানো হয়।

গত ২০ নভেম্বর বিমান হামলা চালানোর পর তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েব এরদোয়ান ইরাক ও সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে সন্ত্রাস দমনে হামলার ব্যাপারে সতর্ক
করেছিলেন।

ওই হামলার প্রধান সন্দেহভাজন হিসেবে এক সিরীয় নারীকে আটক করে তুরস্কের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। পুলিশ বলছে, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ওই নারী স্বীকার করেন তিনি সিরিয়ায় কুর্দি যোদ্ধাদের কাছ থেকে প্রশিক্ষণ পেয়েছেন। সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় আফরিন অঞ্চল দিয়ে তিনি তুরস্কে প্রবেশ করেন।

অভিযান প্রসঙ্গে ইব্রাহিম কালিন আরও দাবি করেন, বেসামরিক ব্যক্তি, আমেরিকান বা রাশিয়ান সৈন্যদের লক্ষ্য করে এসব হামলা চালানো হয়না।

তুরস্ক গত কয়েক দশক ধরে কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) বিরুদ্ধে লড়াই করে আসছে। কুর্দি সশস্ত্র গোষ্ঠী পিকেকে-কে তুরস্ক, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন একটি ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’ হিসেবে তালিকাভুক্ত করে।

সিরিয়ার যুদ্ধ চলছে প্রায় ১১ বছর ধরে। দেশটির বাশার আল-আসাদ সরকারকে সমর্থন দিচ্ছে রাশিয়া ও ইরান। অন্যদিকে, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্সসহ পশ্চিমা দেশগুলো বাশার আল-আসাদবিরোধী। তাদের সঙ্গে রয়েছে তুরস্ক, সৌদি আরবসহ আরও কয়েকটি আরব দেশ।

২০১১ সালের মার্চে দেশটিতে যে সংকটের সূচনা হয়েছিল তার সুরাহা হয়নি এখনও। জাতিসংঘের তথ্য বলছে, ২০২২ সালেরর শুরুর দিকে সিরিয়ার ১ কোটি ৪৬ লাখের বেশি মানুষের মানবিক সহায়তার প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়। প্রায় ৫ লাখ সিরীয় শিশু ভয়াবহ অপুষ্টিতে ভুগছে। উদ্বাস্তু হয়েছে কয়েক লাখ সিরীয়।

সূত্র: টিআরটি ওয়ার্ল্ড

আবারও করোনা আক্রান্ত অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্থনি আলবানিজ দ্বিতীয় বারের মতো করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) তিনি নিজেই করোনা আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তবে তিনি বাড়িতে থেকেই কাজ করবেন।

গত অক্টোবরে করোনা সংক্রমিত লোকজনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন প্রত্যাহার করে দেশটির সরকার।

এক বিবৃতিতে আলবানিজ বলেছেন, ‘আমি অসুস্থ যে কাউকে পরীক্ষা করাতে এবং তাদের পরিবার ও প্রতিবেশীদের ভালো রাখার জন্য অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করতে উত্সাহিত করছি।’

প্রধানমন্ত্রী আলবানিজের আগামী ১২-১৩ ডিসেম্বর, দুই দিনের সফরে পাপুয়া নিউগিনি যাওয়ার কথা রয়েছে।

এক দশক পর অস্ট্রেলিয়ায় আবারও সরকার গঠন করে লেবার পার্টি। গত মে মাসের ভোটে প্রধানমন্ত্রী পদে বেসরকারিভাবে জয়ী হন লেবার নেতা অ্যান্থনি আলবানিজ।

এদিকে, বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে ৪৬৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে ২ লাখ ৬৫ হাজার ৮৭ জন। এছাড়া একদিনে সুস্থ হয়েছেন ৮১ হাজার ৫৪ জন। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানবিষয়ক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া গেছে এসব তথ্য।

সূত্র: রয়টার্স

সরবরাহ ব্যবস্থায় সমস্যা সত্ত্বেও বিশ্বে বেড়েছে অস্ত্র বিক্রি
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সরবরাহ ব্যবস্থায় নানা ধরনের সমস্যা সত্ত্বেও বিশ্বে অস্ত্র বিক্রি বেড়েছে উল্লেখযোগ্য হারে। ২০২১ সালে অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম উৎপাদনকারী বিশ্বের একশ বড় কোম্পানির বিক্রি এক দশমিক নয় শতাংশ বেড়ে ৫৯২ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে। স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (এসআইপিআরআই) নতুন তথ্যে এমন পরিসংখ্যান পাওয়া গেছে। খবর আল-জাজিরার।

সোমবার (৫ অক্টোবর) এসআইপিআরআই তাদের প্রকাশিত তথ্যে জানায়, গত সাত বছর ধারাবাহিকভাবে বিশ্বে অস্ত্র বিক্রি বেড়েছে।

সংস্থাটি জানায়, ২০২১ সালে অস্ত্র বাণিজ্যে বড় বাধা হয়ে দাঁড়ায় সরবরাহ লাইনে।

এসআইপিআরআই মিলিটারি এক্সপেন্ডিচার অ্যান্ড আর্মস প্রোডাকশন প্রোগ্রামের পরিচালক এক বিবৃতিতে বলেছেন, সরবরাহ লাইনে সমস্যা না হলে ২০২১ সালে আরও বেশি অস্ত্র বিক্রি হতে পারতো।

ছোট বড় সব কোম্পানি জানিয়েছে, গত বছর অস্ত্র বিক্রিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। অস্ত্র উৎপাদনকারী কোম্পানি এয়ারবাস ও জেনারেল ডাইনামিকসহ বেশ কিছু কেম্পানি কর্মী ঘাটতির কথা জানায়।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে হামলা চালায় রাশিয়া। এতে সরবরাহ লাইন আরও চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। কারণ অস্ত্র তৈরির ক্ষেত্রে পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়ার কাঁচামালের ওপর অনেক বেশি নির্ভরশীল।

এসআইপিআরআই জানায়, এমন পরিস্থিতির কারণে অস্ত্র মজুদের ক্ষেত্রে বেকায়দায় পড়তে পারে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় দেশগুলো। কারণ তারা বিলিয়ন বিলিয়ন মূল্যের সামরিক সরঞ্জাম ইউক্রেনে পাঠাচ্ছে।

অন্যদিকে পাশ্চিমাদের নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়াও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। দেশটির অস্ত্র উৎপাদনে যেমন সমস্যা হচ্ছে তেমনি রাপ্তানির অর্থ পেতেও একই অবস্থা তৈরি হয়েছে। যদিও যুদ্ধের কারণে রাশিয়া উৎপাদন বাড়াচ্ছে।

২০২৩ সালে যুক্তরাজ্যে কমবে প্রবৃদ্ধি, বাড়বে বেকারত্ব
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আগামী বছর ব্রিটেনের অর্থনীতি শূন্য দশমিক চার শতাংশ সংকোচিত হওয়ার পথে। দেশটিতে একদিকে রয়েছে উচ্চ মূল্যস্ফীতি অন্যদিকে কোম্পানিগুলো বিনিয়োগ বন্ধ করে রেখেছে। বলা হচ্ছে, সেখানে অর্থনীতিতে দীর্ঘমেয়াদে নেতিবাচক প্রবণতা থাকবে। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) কনফেডারেশন অব বিজনেস ইন্ডাস্ট্রি (সিবিআই) এক পূর্বাভাসে এ তথ্য জানিয়েছে। খবর রয়টার্সের।

সিবিআইয়ের মহাপরিচালক টনি ড্যানকার বলেন, যুক্তরাজ্যে বর্তমানে নানা ক্ষেত্রে অস্থিতিশীলতা রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে আকাশচুম্বী মূল্যস্ফীতি, নিম্নমুখী সূচক, উৎপাদন ও বিনিয়োগে পতন। কোম্পানিগুলোর যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে কিন্তু নেতিবাচক সূচকগুলো ২০২৩ সালের বিনিয়োগে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সিবিআই চলতি বছরের জুনে যে পূর্বাভাস দিয়েছিলে পরিস্থিতি তার চেয়ে এখন খারাপ। তখন ২০২৩ সালের জন্য এক দশমিক শূন্য শতাংশ প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল। তাছাড়া দেশটির জিডিটি ২০২৪ সালের মাঝামাঝি সময়ের আগে করোনা মহামারির আগের লেভেলে আসবে না বলেও মনে করা হচ্ছে।

ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার পরই তীব্র জ্বালানি সংকটে পড়ে ব্রিটেন। বেড়ে যায় গ্যাস ও তেলের দাম। এতে মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয় প্রায় অসহনীয় পর্যায়ে পৌঁছেছে। তাছাড়া করোন মহামারির পর শ্রমবাজারও ঘুরে দাঁড়ায়নি। এমন পরিস্থিতির মধ্যেই ধারাবাহিকভাবে কমছে বিনিয়োগ ও উৎপাদন।

সিবিআই জানিয়েছে, ২০২৩ সালে দেশটিতে বেকারত্বের হার দাঁড়াতে পারে পাঁচ শতাংশে। বর্তমানে যুক্তরাজ্যে বেকারত্বের হার তিন দশমিক ছয় শতাংশ।

চলতি বছরের অক্টোবরে যুক্তরাজ্যের মূল্যস্ফীতি ৪১ বছরের মধ্যে বেড়ে ১১ দশমিক এক শতাংশ হয়, যা ভোক্তাদের চাহিদায় প্রভাব ফেলেছে। সিবিআইয়ের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আগামী বছর এটি সাত শতাংশের নিচে চলে আসবে। আর ২০২৪ সালে আসবে তিন শতাংশের নিচে।

বিশ্ববাজারে বেড়েছে জ্বালানি তেলের দাম
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বিশ্ববাজরে জ্বালানি তেলের দাম উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) সকালের দিকে দেখা গেছে, তেলের দাম বেড়েছে দুই শতাংশ। ওপেক প্লাস তাদের উৎপাদন লক্ষমাত্রা একই রকম রাখছে। তাছাড়া রাশিয়ার তেলের মূল্য নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে চীনে করোনার বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল হয়েছে। এ কারণেই জ্বালানি তেলের দাম বেড়েছে। খবর রয়টার্সের।

প্রতিবেদনে বলা হয়, চীনে করোনার লকডাউন শিথিল করায় তেলের চাহিদা বেড়েছে। তারপরও চীনের নীতি নিয়ে এখনো অনেক বিভ্রান্ত রয়েছে।

সোমবার সকালের দিকে ব্রেন্ট ক্রুডের দাম ব্যারেলপ্রতি ৭২ সেন্টবা শূন্য দশমিক আট শতাংশ বেড়ে ৮৬ দশমিক ২৯ ডলারে দাঁড়িয়েছে। একই সঙ্গে ইউএস ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েটের মূল্য ব্যারেলপ্রতি ৭০ সেন্ট বা শূন্য দশমিক নয় শতাংশ বেড়ে ৮০ দশমিক ৬৮ ডলারে দাঁড়িয়েছে।

পেট্রোলিয়াম রপ্তানিকারকদের সংস্থার নাম হলো ওপেক। রাশিয়াসহ অন্যান্য মিত্রদের নিয়ে গঠিত হওয়ায় এটি হয়েছে ওপেক প্লাস। সংস্থাটি চলতি বছরের অক্টোবরে দৈনিক ২০ লাখ ব্যারেল তেল কম উৎপাদনের ঘোষণা দেয়। তারা এখনো এই নীতিতে অটল অর্থাৎ উৎপাদন বাড়াবে না।

বিশ্লেষকরা জানিয়েছে, ওপেক প্লাস যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা প্রত্যাশিত ছিল। কারণ তারা রাশিয়ার তেলের ওপর পশ্চিমাদের পদক্ষেপের নজর রাখছিল।

ন্যাশনাল অস্ট্রেলিয়া ব্যাংকের কমোডিটি রিসার্চের প্রধান ব্যাডেন মুর বলেছেন, ওপেক উৎপাদন একই রকম রাখলেও বাজারে তারা একটা ভারসাম্য রাখবে।

উড ম্যাকেঞ্জির ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যান-লুইস হিটল বলেছেন, রুশ তেলের বিকল্প হিসেবে ইউরোপীয় ইউনিয়নকে মধ্যপ্রাচ্য, পশ্চিম আফ্রিকা ও যুক্তরাষ্ট্রের তেলের সন্ধান করতে হবে।

এদিকে পশ্চিমাদের বেঁধে দেওয়া তেলের দাম মানতে নারাজ রাশিয়া। শুধু তাই নয়, কীভাবে এর জবাব দেওয়া যায় তার বিকল্প খুঁজছে মস্কো। এ বিষয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও শিল্পোন্নত দেশগুলোর জোট জি-সেভেনকে সতর্কও করেছে ক্রেমলিন।

ইউক্রেন যুদ্ধের রসদ যোগাতে সস্তায় তেল বিক্রি করছে রাশিয়া, এমন অভিযোগ পশ্চিমাদের। সেকারণে বেঁধে দেওয়া দরে এবার তেল কিনবে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত (ইইউ) দেশগুলো। ইইউ দেশগুলোর সরকার রাশিয়ার সমুদ্রজাত জ্বালানি তেল কেনার বিষয়ে ঐকমত্যে পৌঁছায় বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর)।

গত শুক্রবার জি-৭, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও অস্ট্রেলিয়া রাশিয়ার তেলের মূল্য ব্যারেলপ্রতি ৬০ ডলার নির্ধারণ করে দেয়।

দিল্লির বায়ুদূষণ বিপজ্জনক পর্যায়ে, নির্মাণখাতে নিষেধাজ্ঞা
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : কোনোভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখা যাচ্ছে না, বেড়েই চলেছে ভারতের রাজধানী দিল্লির বায়ুদূষণ। এই অবস্থায় যাবতীয় নির্মাণ কাজে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে দিল্লি প্রশাসন। একই সঙ্গে ইমারত ভাঙার কাজেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। খবর এনডিটিভির।

গত মাসে দেশটির কেন্দ্রীয় বিশেষজ্ঞ কমিটি দূষণ ঠেকাতে নির্মাণ কাজে নিষেধাজ্ঞা জারির পরামর্শ দিয়েছিল। কার্যত সেই পথেই হাঁটলো প্রশাসন।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কিছুদিন পর দূষণের মাত্রা কমলে ফের নির্মাণ ও ইমারত ভাঙার কাজে অনুমতি দেওয়া হবে।

গত নভেম্বরে একটি জরিপে চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। এতে দাবি করা হয়, দিল্লির ৮০ শতাংশ পরিবার বায়ু দূষণ সংক্রান্ত অসুস্থতায় ভুগছে। গত কয়েক সপ্তাহে দিল্লিতে বসবাসকারী ৮০ শতাংশ পরিবারের কোনো না কোনো সদস্য দূষণের কারণে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

দীপাবলির পর থেকেই দিল্লিতে বায়ু দূষণের মাত্রা উল্লেখযোগ্য হারে বাড়তে শুরু করে। বায়ুদূষণ সূচক স্বাভাবিক থাকা তো দূর, বরং তা ‘বিপজ্জনক’ পর্যায় পৌঁছে যায়। ফলস্বরূপ নাগরিকদের হাজার রকম অসুস্থতা দেখা দিচ্ছে।

বাসিন্দারা অনেকেই শ্বাসকষ্ট, চোখ জ্বালা, মাথা যন্ত্রণার অসুখে ভুগছেন। অনেকে অতিরিক্ত অসুস্থতায় চিকিৎসকের কথা যেতে বাধ্য হচ্ছেন। গোটা বিষয়ে উদ্বিগ্ন বিশেষজ্ঞ বিজ্ঞানীর। তাদের মতে পরিস্থিতি প্রাণঘাতী পর্যায়ে পৌঁছেছে।

দূষণের ফলে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়েছেন বয়স্ক মানুষরা। তাছাড়া শিশুদের ক্ষেত্রেও দিল্লির বাতাস ক্ষতিকারক হয়ে উঠেছে। যাদের হৃৎপিণ্ড কিংবা ফুসফুসের অসুখ রয়েছে, তাদের পক্ষে এই বাতাস অত্যন্ত উদ্বেগজনক। এই পরিস্থিতিতে সর্বত্র মাস্ক পরে চলাফেরা করার নির্দেশ দিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এই অবস্থায় গত মাসে কেন্দ্রের বিশেষজ্ঞ কমিটি নির্মাণ কাজ ও ইমরাত ভাঙার কাজে নিষেধাজ্ঞা জারির পরামর্শ দেয়। সেই মতো ব্যবস্থা নিলো প্রশাসন।

তবে বায়ুদূষণের মাত্রা কমলে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হবে। রোববার বিকেল চারটার দিকে দিল্লিতে বায়ুদূষণের মাত্রা ছিল এয়ার কোয়ালিটি ইন্ডেক্স (একিউআই) ৪০৭। একিউআই ২০১ থেকে ৩০০-র মধ্যে থাকলে তা ‘খারাপ’, ৩০১ থেকে ৪০০-র মধ্যে ‘খুব খারাপ’, ৪০১ থেকে ৫০০ ‘বিপজ্জনক’।

গুজরাটে দ্বিতীয় দফায় ভোট দেবেন নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহ
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের গুজরাটে বিধানসভা নির্বাচনে দ্বিতীয় দফার ভোটগ্রহণ হচ্ছে সোমবার (৫ ডিসেম্বর)। এই দফায় ৯৩টি আসনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে সকাল ৮টা থেকে। তার আগে রোববার আমদাবাদে গিয়ে মা হীরাবেন মোদীর সঙ্গে দেখা করে এলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

দ্বিতীয় দফাতেই ভোট দেবেন প্রধানমন্ত্রী ও তার মা। আমদাবাদে সকাল সাড়ে ৮টা নাগাদ তাদের ভোট দেওয়ার কথা। ভোট দেবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও।

গত ১ ডিসেম্বর গুজরাতে প্রথম দফার ভোটগ্রহণ হয়েছে। মূলত পাকিস্তান সীমান্তবর্তী কচ্ছ, উপকূলবর্তী জেলা ও মধ্য গুজরাতের কিছু জেলার মোট ৮৯টি আসনে ভোটগ্রহণ হয়।

দ্বিতীয় যে কটি আসনে ভোটগ্রহণ হতে চলেছে, তার মধ্যে মধ্য এবং উত্তর গুজরাটের ১৪ জেলা রয়েছে। রয়েছে রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশের সীমান্তবর্তী আদিবাসী অধ্যুষিত জেলাগুলোও। যেখানে বিজেপি গত বিধানসভা ভোটে কংগ্রেসের থেকে অনেকখানি পি‌ছিয়ে ছিল।

তবে ওই ৯৩টি আসনের মধ্যে গতবার বিজেপি জিতেছিল ৫১টি আসনে। কংগ্রেস ৩৯টি আসনে। নির্দল প্রার্থীদের দখলে গিয়েছিল তিনটি আসন।

গুজরাটে গত নির্বাচনের তুলনায় এবার প্রথম দফায় কম ভোট পড়েছে। গতবার যেখানে ৬৯ শতাংশ ভোট পড়েছিল, এ বার তা কমে হলো ৬২ শতাংশ। স্পষ্টতই বোঝা যাচ্ছে, এবার অনেক কম মানুষ ভোটপ্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করেছেন।

প্রচলিত একটি ধারণা হলো, ভোটদানের হার কম হলে শাসক দল আবার ক্ষমতায় ফেরে। আর ভোটদানের হার তুলনায় বেশি হলে ধরে নেওয়া হয় শাসককে ক্ষমতাচ্যুত করতেই বেশি সংখ্যক মানুষ ভোটপ্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করেছেন।

তবে অন্য অনেক ধারণার মতোই এ ধারণাও স্বতঃসিদ্ধ নয়। বহুবার এর ব্যতিক্রমও দেখা গিয়েছে। এখন দেখার, দ্বিতীয় দফায় ভোটদানের চিত্র বদলায় কি না।

সূত্র: এনডিটিভি


   Page 1 of 421
     আন্তর্জাতিক
শুধু ভারত নয়, পাকিস্তানের কাছেও কম দামে তেল বিক্রি করবে রাশিয়া
.............................................................................................
কলকাতায় এক মাসে তিনবার বাড়লো ডিমের দাম
.............................................................................................
প্রসাধনী সামগ্রী বিক্রি করে বিলিয়নিয়ারের তালিকায় চীনা নারী
.............................................................................................
বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধ করলো ইন্দোনেশিয়া
.............................................................................................
বিশ্বে করোনায় একদিনে ৮১০ মৃত্যু, শনাক্ত ২ লাখ
.............................................................................................
ইউক্রেনে আবারও রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলা, নিহত ২
.............................................................................................
কলম্বিয়ায় ভূমিধসে চাপা পড়লো বাস, নিহত ২৭
.............................................................................................
রাশিয়ার দুটি বিমানঘাঁটিতে বিস্ফোরণ, নিহত ৩
.............................................................................................
উত্তর কোরিয়া শতাধিক কামানের গোলা ছুড়েছে: দক্ষিণ কোরিয়া
.............................................................................................
সিরিয়ায় অভিযান চালাতে অনুমতির প্রয়োজন নেই: তুরস্ক
.............................................................................................
আবারও করোনা আক্রান্ত অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
সরবরাহ ব্যবস্থায় সমস্যা সত্ত্বেও বিশ্বে বেড়েছে অস্ত্র বিক্রি
.............................................................................................
২০২৩ সালে যুক্তরাজ্যে কমবে প্রবৃদ্ধি, বাড়বে বেকারত্ব
.............................................................................................
বিশ্ববাজারে বেড়েছে জ্বালানি তেলের দাম
.............................................................................................
দিল্লির বায়ুদূষণ বিপজ্জনক পর্যায়ে, নির্মাণখাতে নিষেধাজ্ঞা
.............................................................................................
গুজরাটে দ্বিতীয় দফায় ভোট দেবেন নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহ
.............................................................................................
বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ৩০ বছর
.............................................................................................
ইমরান খানের রাজনীতির কারণে দুর্বল হচ্ছে পাকিস্তান: শাহবাজ
.............................................................................................
নকআউট পর্বে সব মহাদেশের দল, বিশ্বকাপে আরেক ইতিহাস
.............................................................................................
পরকীয়ার বলি: অল্প অল্প করে বিষ খাইয়ে স্বামীকে হত্যা
.............................................................................................
ফুটবল বিশ্বকাপ: কাতারে গ্রুপ পর্বের খেলা দেখলো ২৪ লাখ দর্শক
.............................................................................................
কাবুলে পাকিস্তান দূতাবাসে হামলার দায় স্বীকার করলো আইএস
.............................................................................................
পূর্ব ইউক্রেনে সফরে যাবেন পুতিন : ক্রেমলিন
.............................................................................................
অ্যাপল আবার টুইটারে বিজ্ঞাপন দেওয়া শুরু করেছে: ইলন মাস্ক
.............................................................................................
অমীমাংসিত কাশ্মীর বিরোধ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের তালিকায় আরও যোগ করেছে: কেআইআইআর
.............................................................................................
হিজাব ইস্যুতে বিক্ষোভে নিহত ২০০, স্বীকার করলো ইরান
.............................................................................................
তেলের দাম বেঁধে দেওয়ায় মস্কোর হুঁশিয়ারি
.............................................................................................
ইন্দোনেশিয়ায় ফের ৬ দশমিক ১ মাত্রার ভূমিকম্প
.............................................................................................
১৯০ বছরে পা দিলো জোনাথন
.............................................................................................
করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট সম্পর্কে সতর্ক করলো ডব্লিউএইচও
.............................................................................................
‘পদ্মভূষণ’ পেলেন গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই
.............................................................................................
পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল নেতার বাড়িতে বোমা বিস্ফোরণ, নিহত ৩
.............................................................................................
ইঁদুর শিকারি চায় নিউইয়র্ক, বেতন ১ কোটি ৭৪ লাখ টাকা
.............................................................................................
ইউক্রেন দ্বিতীয় মহাযুদ্ধের আমলের অস্ত্র ব্যবহার করছে
.............................................................................................
বাইডেনকে পাল্টা শর্ত পুতিনের
.............................................................................................
ভারতে হিন্দুত্ব ফ্যাসিবাদ: একটি সংক্ষিপ্ত বিবরণ
.............................................................................................
ভারত চলচ্চিত্র উৎসবের ইসরায়েল প্রধান প্রচারক কাশ্মীর চলচ্চিত্রকে `অশ্লীল` বলে নিন্দা করেছেন
.............................................................................................
রাশিয়ার তেল ব্যারেলপ্রতি ৬০ ডলারে কিনতে একমত ইইউ
.............................................................................................
ম্যাচ টিকিট না থাকলেও কাতার ঢুকতে পারবেন ফুটবলপ্রেমীরা
.............................................................................................
প্রকৃতির জন্য ২০২৫ সালের মধ্যে অর্থায়ন দ্বিগুন হবে : জাতিসংঘ
.............................................................................................
ফুটবলের বিস্ময় ৩৮ লাখ জনসংখ্যার দেশ ক্রোয়েশিয়া
.............................................................................................
চীনে বিক্ষোভের পর লকডাউন শিথিল
.............................................................................................
রুশ সেনাদের স্ত্রীদের বিরুদ্ধে গুরুতর যে অভিযোগ আনলেন ইউক্রেনের ফার্স্টলেডি
.............................................................................................
অ্যাপলের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝির সমাধান হয়েছে: ইলন মাস্ক
.............................................................................................
কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলা শুরু হচ্ছে ৩০ জানুয়ারি
.............................................................................................
একতার সর্বজনীন ভাবনা প্রসারে ভারতের জি-২০ সভাপতিত্ব
.............................................................................................
২১টি দেশ ভারতকে ধর্মীয় স্বাধীনতা নিশ্চিত করার আহ্বান জানায়
.............................................................................................
সৌদি আরবে নতুন দুই গ্যাসক্ষেত্রের সন্ধান
.............................................................................................
চীন ছেড়ে জাপানে বসবাস করছেন জ্যাক মা!
.............................................................................................
চীনের সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াং জেমিন মারা গেছেন
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Dynamic Scale BD